হ্যালো বন্ধুরা আমাদের পৃথিবী একটা অদ্ভুত জায়গা আর আমাদের পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে অবিশ্বাস্য প্রজাতির প্রাণী ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে যেগুলো বেশিরভাগ সময়ই নিজেদেরকে লোকচক্ষুর আড়ালে রাখে আর তাই এসব প্রাণী সম্পর্কে আল্লাহ মানুষ যদি খুব বেশি একটা জানতে পারি না তবে আজকের এপিসোড আমরা সেই সকল প্রজাতির প্রাণীদের দেখতে চলেছি ।

আমাদের পৃথিবীটা কতটা বিস্ময়কর স্বাগতম আপনাকে  আরও একটি নতুন এপিসোড এ ফ্লাইং ফিশ বন্ধুরা আপনারা তো উড়োজাহাজের কথা নিশ্চয়ই শুনেছেন আমরা সবাই জানি উড়োজাহাজ আকাশে উড়ে কিন্তু আপনারা জানলে অবাক হবেন এই প্রজাতির মাছ পানিতে চলাচল করতে পারে এবং উড়তেও পারে ঠিক উড়োজাহাজের মত আর এই মাছগুলো কে ফ্লাইং ফিশ বলা হয়ে থাকে অর্থাৎ উড়ন্ত পাখির মত উড়ে না তবে ক্রয় করে তুলতে পারে আপনারা জানলে অবাক হবেন যে সমুদ্রে এমন 64 প্রজাতির মাছ রয়েছে যাদের মধ্যে সবাই এভাবে উঠতে পারে এই মাছগুলো পানি থেকে 20 ফুট উপরে উঠতে পারে এবং এই মাছগুলো তেরোশো পর্যন্ত একটানা চলতে পারে 70 মাইল প্রতি ঘন্টা গতিবেগে 2008 সালে জাপানের একটি সমুদ্রে 45 সেকেন্ড পর্যন্ত উড়তে দেখা যায় একটি রেকর্ড ছিল আপনারা হয়তো ভাবছেন যে একটি মাছ কেন এমন ভাবে উড়বে আসলে এটা এই প্রজাতির মাছের একটি ডিফেন্স সিস্টেম আক্রমন করলেন তখন এগুলো এভাবে নিজেদের প্রাণ বাঁচায় তবে কোনো কোনো সময় এই শিকারি মাছ গুলোর জন্য পানি থেকে উপরে উঠে পড়ার সময় প্রাণ হারাতে হয় কারণ শিকারি মাস থেকে বাঁচার জন্য যখন এই মাছগুলো লাফ দেয় তখন শূন্যে ভাসতে থাকা সেই পাখিটি মাছগুলোকে খেয়ে ফেলে এগুলো প্রজাতির মাছ যেগুলোকে বলা হয়ে থাকে এগুলো এভাবে উঠতে পারে।
সেকেন্ড পার্ট বন্ধুরা দেখুন এই পাখিগুলো কতটা অ্যামেজিং এ পাখি গুলো দেখে সত্যিই আপনারা কনফিউজ হয়ে যাবে না কারণ এই প্রজাতির পুরুষ বা শুকনো ঠোঁটের নিচে লাল রঙের একটি বিশাল আকারে থাকে যার ডায়ামিটার 25 সেন্টিমিটার এই পাখিগুলো কেবলমাত্র সাল থেকেই পাওয়া যায় এগুলো দিয়ে মানুষকে খুব ভালোভাবে আকর্ষণ করতে পারে এই পাখিগুলোকে দেখে যে কেউ সম্মোহিত হয়ে যায় পাখিগুলো দেখতে খুবই সুন্দর না হলেও লাল রংয়ের পাখিগুলোকে এতটা আকর্ষণীয় করে তুলেছে এই পাখিগুলো বেশিরভাগ সময় হাওয়াতে ভেসে থাকতে পছন্দ করে ।


Post a Comment

Previous Post Next Post